এইচএসসির পঞ্চম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ

২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম চলছে। আগামী বছরের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের পঞ্চম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর মাউশি। গতকাল রোববার পঞ্চম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ করা হয়। আজ সোমবার থেকে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের পঞ্চম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম শুরু হচ্ছে।

করোনাভাইরাসের প্রকোপে ২০২০ সালের ১৮ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। এর কারণে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীরা নির্ধারিত পাঠ্যসূচি অনুযায়ী শিক্ষাকার্যক্রমে অংশগ্রহণ করতে পারেনি এবং তাদের মূল্যায়ন করা যায়নি। এ অবস্থায় শিক্ষার্থীদের শিখনপ্রক্রিয়ার সঙ্গে সম্পৃক্ত রাখতে ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির মতো ২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদেরও অ্যাসাইনমেন্ট প্রণয়ন করা হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিকল্প হিসেবে বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। এর অনলাইন ক্লাসও আছে। এরই অংশ হিসেবে এনসিটিবি আগামী বছরের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যসূচিকে পুনর্বিন্যাস করেছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচির ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের শিখন কার্যক্রম সম্পৃক্তকরণ ও ধারাবাহিক মূল্যায়নের আওতায় আনয়নের জন্য এনসিটিবি কর্তৃক বিষয়ভিত্তিক মূল্যায়ন নির্দেশনাসহ অ্যাসাইনমেন্ট প্রণয়ন করা হয়েছে।

শিক্ষা অধিদপ্তর আরও বলছে, অ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজের মাধ্যমে তাদের অর্জিত শিখনফল নির্ণয় করা হবে। পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচি অনুযায়ী সপ্তাহভিত্তিক শিক্ষার্থী মূল্যায়ন বিবেচনায় নিয়ে অ্যাসাইনমেন্ট প্রণয়ন করা হয়েছে। অ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজের মাধ্যমে তাদের অর্জিত শিখনফল নির্ণয় করা হবে। পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচি অনুযায়ী সপ্তাহভিত্তিক শিক্ষার্থী মূল্যায়ন বিবেচনায় নিয়ে অ্যাসাইনমেন্ট প্রণয়ন করা হয়েছে। সপ্তাহের শুরুতে শিক্ষা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ করা হবে। শিক্ষার্থীরা তাদের অ্যাসাইনমেন্ট শেষ করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জমা দিয়ে নতুন অ্যাসাইনমেন্ট গ্রহণ করবে।

মাউশি বলেছে, প্রতিটি প্রতিষ্ঠানে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম পরিচালনা ও তা নিশ্চিত করতে হবে। অ্যাসাইনমেন্টের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নের যথার্থতা ও নির্ভরযোগ্যতা নিশ্চিত করতে হবে। মূল্যায়নের শেষে শিক্ষার্থীদের সাফল্য ও দুর্বলতা চিহ্নিত করে শিক্ষকেরা সুনির্দিষ্ট মন্তব্য করছেন তা পরিবীক্ষণ করতে হবে, প্রয়োজনে শিক্ষকদের কাছ থেকে মূল্যায়নের ব্যাখ্যা নিতে হবে। প্রতিটি প্রতিষ্ঠান মূল্যায়ন রেকর্ড নির্ধারিত ছক অনুসারে সংরক্ষণ করেছেন কি না, তাও পরিবীক্ষণ করতে বলা হয়েছে আঞ্চলিক পরিচালকদের।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top