করোনাকালে সহশিক্ষা

বৈশ্বিক মহামারি করোনার জন্য এক বছরের বেশি সময় বন্ধ রয়েছে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম চললেও ব্যাহত হয়েছে সহশিক্ষা চর্চা।

অনলাইনে পড়াশোনা ও দীর্ঘ সময় বাসায় অবস্থানের কারণে অনেক শিক্ষার্থী মানসিকভাবে বিপর্যস্ত। পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা সহশিক্ষা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করত। কিন্তু প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় তারা অনেকেই সহশিক্ষা কার্যক্রম থেকে পিছিয়ে এসেছে। আজকের লেখাটি মূলত করোনাকালে একজন শিক্ষার্থী বাসায় বসে কীভাবে সহশিক্ষা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করবে সে বিষয়ে।

বর্তমানে একজন শিক্ষার্থী চাইলে অনলাইনে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারে। এর মাধ্যমে তাদের পড়াশোনার পাশাপাশি সহশিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। মানসিক চাপ অনেকটাই দূরীভূত হবে।
১.
স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের জন্য অনলাইনে বিভিন্ন অলিম্পিয়াডে আয়োজন করা হয়। যেমন: গণিত অলিম্পিয়াড, পদার্থ অলিম্পিয়াড, বায়োলজি অলিম্পিয়াড, রোবটিকস অলিম্পিয়াড ইত্যাদি। করোনা মহামারির জন্য এই প্রতিযোগিতাগুলো অনলাইনে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রতিযোগিতা সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে নিচের ওয়েবসাইটগুলো দেখতে পারো।
www.matholympiad.org.bd
www.bdpho.org
www.bdro.org
www.borg

২.
যারা প্রোগ্রামিং করতে ভালোবাসো এবং বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে চাও, তাদের জন্য নিচের ওয়েবসাইটগুলো। এই ওয়েবসাইটগুলোর মাধ্যমে তোমরা বিভিন্ন প্রতিযোগিতা সম্পর্কে জানতে পারবে। https://toph.co লিংকে ঢুঁ মারলে বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা সম্পর্কে জানা যাবে। প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয়।
Code Jam (এটি হলো গুগলের প্রোগ্রামিংবিষয়ক একটি প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করতে পারলে পরবর্তী সময়ে গুগলে চাকরি পাওয়ার একটি সম্ভাবনা তৈরি হয়।)
https://icpc.global (এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করা যায়।)
NHSPC (বাংলাদেশের হাইস্কুল শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রোগ্রামিংবিষয়ক প্রতিযোগিতায় উদ্বুদ্ধ করতে এটি আয়োজন করা হয়ে থাকে।)

৩.
বর্তমানে অনলাইনে অনেকগুলো সাংস্কৃতিক ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এ ইভেন্টগুলোতে অংশগ্রহণ করে নিজেদের সহশিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখা যেতে পারে। আমরা অনেকেই কমবেশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে থাকি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ইভেন্ট বলে একটি অপশন আছে। সেখান থেকে আমরা অনুষ্ঠিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতার তথ্য পেয়ে থাকি। চাইলে সেসব প্রতিযোগিতায় ঘরে বসে অংশগ্রহণ করা যেতে পারে।

৪.
যারা একটু অন্য রকম বা ভিন্ন ধরনের কিছু পছন্দ করে তাদের জন্য এই অংশটি। Case study, quizzes, debate, research, global competetion–এর প্রতি আমাদের অনেকের আগ্রহ আছে। নিচের ওয়েবসাইটগুলোতে বিস্তারিত মিলবে—
https://idea.gov.bd (আপনার উদ্ভাবনী আইডিয়াগুলো বাংলাদেশ সরকারকে জানাতে পারবেন এ ওয়েবসাইটের মাধ্যমে।)
https://ideabank.eservice.gov.bd (নাগরিক জীবনে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন সমস্যার সমাধান আপনার কাছে থাকলে তা জানাতে পারেন এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। আপনার কোনো প্রজেক্ট থেকে থাকলে সরকারি অনুদান পেতে এখানে আবেদনও করতে পারেন।)

https://ieee.org ও https://imeche.org (প্রকৌশল বিষয়ে বিভিন্ন রিসার্চ পেপার চাইলে এখানে জমা দেওয়া যায়। এ ছাড়া বিভিন্ন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয় সংগঠনগুলো থেকে।)

https://dare2compete.com (এই সাইটের মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন দেশের নামীদামি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। Quiz, case study, article writing, business idea সহ আরও অনেক ধরনের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন।)

৫.
প্রতিযোগিতা তো অনেক হলো। এবার একটু স্কিল ডেভেলপমেন্টে আসা যাক। লকডাউনের সময় বাড়িতে বসে বিভিন্ন ধরনের স্কিল অর্জন করতে পারি। যেমন: প্রোগ্রামিং, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, ইংরেজি বলার চর্চা, ফ্রিল্যান্সিং ইত্যাদি। তাদের জন্য নিচের সাইটগুলো।

https://w3schools.com (এই সাইটের মাধ্যমে আপনি প্রোগ্রামিং, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখতে পারবেন।)
https://bbcjanalaghoorilearning.com (ইংরেজিতে কথা বলতে চাইলে এই সাইটটি থেকে কোর্স করতে পারবেন।)

Emporia (এটি একটি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন। প্রতিবন্ধীদের স্কিল ডেভেলপমেন্টের জন্য তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এটি তৈরি করেছে। এতে ফ্রিতে ফ্রিল্যান্সিং, প্রোগ্রামিং, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, ডিজিটাল মার্কেটিংসহ আরও অনেকগুলো কোর্স রয়েছে।)

করোনাকালে বাসায় অবস্থান করুন। অনলাইনে পছন্দমতো সহশিক্ষা কার্যক্রমে অংশ নিন। আর নিজের প্রতিভাকে সবার সামনে প্রকাশ করুন।

SOURCE: Prothom Alo

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back To Top